ছাত্র জীবনে ফ্রিলান্সিং হতে পারে জীবনের সেরা সিদ্ধান্ত।

ফ্রিল্যান্সিং খাতে বাংলাদেশ বেশ ভাল অবস্থানে আছে, বিশ্বে বাংলাদেশের দক্ষ পেশাদারদের দিয়ে কাজ করানো হচ্ছে শতকোটি টাকার।হিসেবমতে বাংলাদেশে ফ্রিল্যান্সার আছে ৫ লক্ষাধিক।
ফ্রিল্যান্সিং যেমন সম্ভাবনা, তেমনি এনিয়ে আছে প্রচুর ভুল ধারণা, আবার ভুল ধারণাকে পুঁজিকরে গড়ে উঠেছে অসাধুব্যবসায়ীদের প্রতারণার ফাঁদ।এসব নিয়েই আলোচনা হবে এই লেখাতে।

ফ্রিল্যান্সিং হল কোন প্রতিষ্ঠানে পার্মানেন্ট চুক্তিবদ্ধ না হয়ে বরং প্রজেক্ট বেসিসে কাজ করা। ফ্রিল্যান্সিং করে আসছে মানুষ শতবছর ধরে। যেমন একজন রিক্সাওয়ালাও ফ্রিল্যান্সার, কারণ সে অন্যেররিক্সা চালায়, ইচ্ছা হলে প্যাসেঞ্জার নেয়, নাহলে নেয় না। তার ফ্রিডম আছে। ইদানিং ফটোগ্রাফাররাও ফ্রিল্যান্সার, কারণ তারা কোথাও ফটোগ্রাফার হিসাবে চাকরি না করে বরংঅনুষ্ঠান বেসিসে শুট করে আর পারিশ্রমিক নেয়। বাংলাদেশের মত দেশ যেখানে চাকরির বাজার বেশ নাজুক অবস্থায় আছে, যেখানে ৪৭% শিক্ষিত জনগোষ্ঠী বেকার, পর্যাপ্ত চাকরির ক্ষেত্র তৈরি হয় না, সেখানে বিকল্প পেশা হিসেবে সম্মানজনকঅবস্থায় আছে ফ্রিল্যান্সিং বা মুক্তপেশা, বা আরও বিস্তরভাবে বলতে গেলে অনলাইন প্রফেশন। অনেক গুলো অনলাইন প্রফেশনের মধ্যে ফ্রিল্যান্সিং একটি। অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং মানে হল, যে কাজ ক্লায়েন্ট অনলাইনের মাধ্যমে আপনাকে দিবে, আপনি সে কাজে চুক্তিবদ্ধ হবেন, নিজের দক্ষতা দিয়ে কাজটা করবেন, আর সেটা অনলাইনের মাধ্যমেই ক্লায়েন্টকে ডেলিভার করবেন, আর ক্লায়েন্ট অনলাইনের মাধ্যমেই আপনাকে পেমেন্ট করবে। এখানে অনলাইনে কাজ করেননি, কাজ আপনার দক্ষতা দিয়েই করেছেন, শুধু মাধ্যমটা অনলাইন, যোগাযোগের মাধ্যম। আপনি হয়ত খুজছেন ফ্রিল্যান্সিং এ কোন কাজ করলে দ্রুত সফল হওয়া যায় এবং ফ্রিল্যান্সিং এর কোন কাজে সবচেয়ে বেশি আয় করা যায়। কোন কাজ করতে আপনার সবচেয়ে ভাল লাগে বা কেমন ধরণের কাজ আপনি ভালভাবে রপ্ত করতে পারবেন? এটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

কেননা আপনি অনেক টাকা আয়ের কথা শুনে হয়ত ওয়েব ডেভেলপমেন্ট (ওয়েব ডেভেলপমেন্ট) পছন্দ করে নিয়েছেন। কিন্তু কিছুদিন কোডিং করার পর আপনার আর ভাল লাগে না, অনেক বিরক্ত লাগে, এমন কি কোডিংএর অনেক কিছু বুঝতে আপনার সমস্যা হয়। তাহলে ওয়েবডেভেলপমেন্ট (ওয়েব ডেভেলপমেন্ট) আপনার জন্য না। আবার ডিজাইন দেখে দেখে ভালইকরতে পারেন কিন্তু যখনই নিজে থেকেএকটা ইউনিক ডিজাইন করতে বলা হয়আপনার মাথা আর কাজকরে না। তাহলে গ্রাফিক্সডিজাইন আপনার জন্য না বলাযায়।

আগে আপনাকে জানতে হবে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি এবং এখানে কি কি কাজ করা হয়?

একই রকম ভাবে ওয়েব ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং,সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং,এফিলেট মার্কেটিং , এসইও সব গুলো সেক্টরের আপনার ধারনা নিতে হবে। তারপর সবশেষে নিজের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত সেক্টরটি বাছাই করে নিতে হবে। আপনাদের সুবিদার্থে আমরা একটি ধাপ তৈরী করে দিব যেটি দেখলে পুরো প্রসেসটি আপনি বুঝতে পারবেন।

  • ফাইনাল কাজ নির্বাচন করুন
  • সময় নিয়ে কাজ শিখুন
  • সফল একজন ফ্রীলান্সার বা এক্সপার্টের অধীনে কিছুদিন কাজ করুন
  • মার্কেটপ্লেস নিয়ে স্টাডি করুন
  • নিজের প্রোফাইল খুলুন
  • কাজের আবেদন করুন
  • সঠিক সময়ে ক্লাইন্টকে কাজ জমা দিন
  • ক্লাইন্টের সাথে যোগাযোগ ঠিক রাখুন
  • সততার সাথে কাজ চালিয়ে যান

আপনাদের সার্বিক সহযোগিতার ফোরসাইট আইটি ইন্সটিটিউটসর্বদা আপনাদের পাশে রয়েছে। যে কোন ব্যাপারে যদি আপনাদের কোন সমস্যা বা সন্দেহ বা কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের এক্সপার্টদের সাথে কথা বলতে পারেন। আপনার আগামী দিনের শুভ কামনা করছি আমরা, আপনি জেনো নিজেকে একজন সফল ফ্রিলান্সার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন। 

আমাদের মাদার কম্পানি এবং সিস্টার কম্পানিঃ  Foresight IT  & Shopno Career IT

সব ধরনের আইটি টিউটোরিয়ালের জন্য আমাদের Youtube Channel link: Foresight IT Institute

Share this Post